জেনে নাও

কখনো নিজের মৃত্যু কামনা করেছেন? তাহলে এ লেখাটি আপনার জন্য

কখনো নিজের মৃত্যু কামনা করেছেন? তাহলে এ লেখাটি আপনার জন্য
কখনো নিজের মৃত্যু কামনা করেছেন? তাহলে এ লেখাটি আপনার জন্য
125views

বিভিন্ন সময় আমরা অনেককে নিজের মৃত্যু কামনা করতে শুনি। কেউ কেউ জীবন যুদ্ধে পরাজিত হয়ে কিংবা কেউ কেউ জীবনের কঠিন পরিস্থিতিতে হতাশ হয়ে নিজের মৃত্যু কামনা করে। “ইশ, যদি মরে যেতাম তাহলে এই দিন দেখা লাগতো না।” / “আল্লাহ আমাকে তাড়াতাড়ি উঠাই নাও” ইত্যাদি বলতে শুনা যায়।

আবার আমি এমন কিছু মানুষের সংস্পর্শে এসেছি যারা মনে করে তাড়াতাড়ি মৃত্যুবরন করলে বোধহয় গুনাহ কম হবে, তাই তারা তাড়াতাড়ি মৃত্যু কামনা করে। আর একদল মানুষ আছে যারা মনে করে কোনো দুর্যোগ কিংবা আযাব এর সময় মারা গেলে “শহীদি” মৃত্যু হবে। যেমন, বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে বেশ কিছু মানুষকে বলতে শুনা যাচ্ছে, “আমি করোনা ভয় পাইনা, যত তাড়াতাড়ি মৃত্যু হয় তত ভালো। আর করোনা হয়ে মারা গেলে তো আমি শহীদ।”

স্কিল ডেভেলপমেন্ট ও নানা রকম মজার টপিক নিয়ে আমরা নিয়মিত ভিডিও প্রকাশ করে থাকি Shadhin School চ্যানেল এ।

নিচে ২টি প্রেক্ষাপটের আলোকে এ ব্যাপারটি পরিষ্কার করার চেস্টা করছি।

প্রথম প্রেক্ষাপট

এক লোক রাসূল (সঃ) কে জিজ্ঞেশ করেছিলেন, “কোন লোক সেরা?” রাসূল (সঃ) উত্তর দিয়েছিলেন,”সেই লোক যে লম্বা হায়াত পায় এবং ভালো কাজ করে”। ঐ লোক আবার জিজ্ঞেস করেন, “কোন লোক নিকৃষ্ট?” রাসূল (সঃ) উত্তর দিয়েছিলেন,”সেই লোক যে লম্বা হায়াত পায় কিন্তু নেক কাজ করে না।” – আল তিরমিদি ২৩৩০

লাবিবা বিনতে আল হারিত (known as Umm al Fadhl) থেকে বর্ণিত আছে, রাসূল (সঃ) একবার এক অসুস্থ ব্যক্তির বাড়িতে যান তাকে দেখতে। লোকটি এতই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলো, উনি আর সইতে পারছিলেন না এবং উনি তাড়াতাড়ি মৃত্যু কামনা করছিলেন যাতে এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পান।

রাসূল (সঃ) তাকে বলেছিলেন, “কখনই মৃত্যু কামনা করো না। কারণ তুমি যদি প্রকৃত মুমিন হও, তাহলে যতদিন হায়াত পাবে, তুমি সুযোগ পাবে তোমার নেক কাজ আরো বাড়িয়ে নেওয়ার। আর তুমি যদি পাপী বান্দা হও, তাহলে তোমার সামনে সুযোগ থাকবে, পরিতাপ করার, তউবা করার, নেক পথে ফিরে আসার। তাই, কখনো মৃত্যু কামনা করিও না।”

আরো পড়তে পারো ই-মেইল ব্যবহার এর ৬টি শিস্টচার

দ্বিতীয় প্রেক্ষাপট

আবু হুরাইরা (রঃ) থেকে বর্ণিত আছে,  দুইজন মানুষ রাসূল (সঃ) এর কাছে এসে ইসলাম গ্রহন করেছেন। তাদের একজন শহীদ হয়েছেন অপরজন একবছর পর মারা গিয়েছেন। তালহা ইবন্ উবাইদুল্লাহ বলেছেন, “আমি স্বপ্নে জান্নাত দেখেছি, যে লোকটি পরে মারা গিয়েছিলো তিনি শহীদ লোকটির আগে জান্নাতে প্রবেশ করেছেন। তাই আমি সকাল বেলা রাসূল (সঃ) এর কাছে ব্যাপারটি জানতে চাই।

রাসুল (সঃ) বলেছেন, “শহীদ লোকটি মারা যাওয়ার পর অপর লোকটি কি রমজান মাসে রোজা রাখেনি? পুরো এক বছরের হাজার হাজার রাখাত সালাত আদায় করেনি?”

*(Classed as saheeh by al-Albaani in al-Silsilah al-Saheehah, 2591. al-‘Ajlooni said in Kashf al-Khafa’: its isnaad is hasan. )

জেনে নাও পাসপোর্ট র‍্যাঙ্কিং নিয়ে যা জানা জরুরি

আল তিবি (র) বলেছেন,”সময় হচ্ছে ব্যবসায়ীর ইনভেস্ট এর মত। যত বেশী ইনভেস্ট তত বেশী মুনাফা। তাই মানুষ যতদিন হায়াত পায় সেটাকে যদি ভালো কাজে লাগায়, তাহলে সে ততবেশি লাভবান।” অর্থাৎ হায়াত পেয়েও যে কাজে লাগাতে পারে না সে সব চেয়ে বড় অভাগা।

রাসূল (সঃ) নিষেধ করেছেন মৃত্যু আসার আগে  মৃত্যু কামনা কিংবা তাড়াতাড়ি মৃত্যুর জন্য দুয়া করতে। আল্লাহ্‌ আমাদের জন্য উত্তম পরিকল্পনা করে রেখেছেন। তাই মৃত্যু কামনা করা মাক্রুহ। 

আমরা যতই বিপদে পড়িনা কেনো, যতই দুর্যোগের সম্মুখীন আমরা হই না কেনো, আমাদের ধৈয্য ধারণ করতে হবে, আল্লাহর উপর বিশ্বাস রেখে সেটি মোকাবেলা করতে হবে। আমরা শুধু মাত্র দুয়া করতে পারি এই বলে, “আল্লাহ্‌ আমাদের তখনি মৃত্যু দিন যখন আমার জন্য সেটি উত্তম হবে। আমাদেরকে যাবতীয় বলা-মুসিবত এবং দুর্যোগ থেকে আপনি হেফাজত করুন। আমাদের কে ঈমান নিয়ে মৃত্যু বরণ করার তৌফিক দান করুন। আমিন”

inspired by Ali Khamenei

আরো পড়তে পারো
ক্যারিয়ার শুরুতে ব্যর্থ ছিলেন সফল যে ৪ উদ্যোক্তা
সফলতার ৭টি সুত্র
ভার্সিটি জীবন শুরুর আগে করে ফেলো এই ৫টি কাজ
ফেইল মানেই কি সব শেষ?

Leave a Response

Abdullah Abu Sayeed
I am an Architecture student who loves to narrate story through lens. Loves to writes and wants to be a successful Entrepreneur.