প্রোডাক্টিভিটি

সঠিক সময়ে সকল কাজ শেষ করার সহজ উপায়

সঠিক সময়ে সকল কাজ শেষ করার সহজ উপায়
236views

আমরা সকলেই একসাথে অনেকগুলো কাজ সম্পাদন করতে চাই। কিন্তু সব সময় কাজগুলো সম্পাদন করা সহজ হয়না। দেখা যায় একটি কাজ শেষ করতে করতে অন্য কাজটি আর করার সময় থাকে না। কিছু কৌশল অবলম্বন করলে তুমি খুব সহজেই সকল কাজ সঠিক সময়ে শেষ করতে পারবে। এমনই কিছু কৌশল আলোচনা করা হবে এই লিখাতে।  তাহলে চলো শুরু করা যাক…

স্কিল ডেভেলপমেন্ট ও নানা রকম মজার টপিক নিয়ে আমরা নিয়মিত ভিডিও প্রকাশ করে থাকি Shadhin School চ্যানেল এ।

সারাদিনের কর্ম পরিকল্পনা বা To-Do List তৈরী করো

প্রতিদিনের শেষে পরবর্তি দিনে কি কি কাজ করবে তার একটি তালিকা তৈরী করো। সেগুলোর মধ্যে কোন গুলো বেশি গুরুত্বপূর্ণ এবং কোন গুলো কম গুরুত্বপূর্ণ তা নির্ধারন করো। এতে পরবর্তি দিনে তোমাকে কি কি কাজ করতে হবে বা কোন ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে সে সম্পর্কে একটি ধারনা পেয়ে যাবে। এর ফলে তোমার মানসিক প্রস্তুতিও হয়ে যাবে। একই সাথে একই ধরনের কাজ গুলোকে একত্রিত করো। এতে একই ধরনের কাজ গুলো একসাথে করে নিজের মূল্যবান সময় বাচাতে পারবে।

আরো পড়তে পারো ই-মেইল ব্যবহার এর ৬টি শিস্টচার

গুরুত্বপূর্ণ কাজ গুলোকে অগ্রাধিকার দেওয়া

এটা বোঝা গুরুত্বপূর্ণ যে তোমার কোন কাজটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ, এতে তুমি সেই কাজটির দিকে আরো মনোযোগ দিতে পারবে। এর ফলে, তোমার গুরুত্বপূর্ণ কাজে ভুল করার সম্ভাবনা কম থাকে। দিন শুরু করো শীর্ষ অগ্রাধিকারযুক্ত কাজগুলো দিয়ে। এতে করে দিনের গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো শেষ হয়ে গেলে তোমার মানসিক তৃপ্তি বেড়ে যাবে যা পরবর্তী কাজ গুলোকে আর দিগুণ স্পীডে এগিয়ে নিবে।

প্রতি সন্ধ্যায় বা দিনের শেষে তোমার আবসর সময়ে তোমার অগ্রাধিকার দেওয়া কাজের তালিকার কাজ গুলিতে তুমি কি কি ভুল করেছো এবং সেগুলো কিভাবে শুধরানো যায় সেগুলো নিয়ে ভাবো। একই সাথে সেগুলো শুধরানোর চেষ্টা করো। কাজ করার সময় নিজের ফোকাস স্থির রাখো।

আরো পড়তে পারো দ্রুত টাইপিং শিখার ৫টি গেম এবং অ্যাপ্লিকেশন

সময় ভাগ করে কাজ করো 

তুমি যখন খুব সহজেই তোমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং একই ধরনের কাজের একটি তালিকা তৈরি করে ফেলতে পারবে, তখন তোমার সময় ভাগ করে নাও,  কখন কোন কাজটি করবে। যেমন ধরো তোমাকে কোন তথ্যের জন্য কয়েকটি ই-মেইল পাঠাতে হবে, চেষ্টা করো সবগুলো ই-ইমেইল একবারে পাঠিয়ে ই-মেইল সংক্রান্ত কাজ শেষ করতে।

পাশাপাশি সারাদিনের মধ্যে অল্প অল্প সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যয় না করে, দিনের নির্দিষ্ট ১ঘন্টা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যয় করতে। এই সময়ের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যাদের সাথে যোগাযোগ করার ইচ্ছা সেগুলো করো, তোমার পছন্দের জিনিস গুলো শেয়ার করো।

অর্থাৎ আগে যে সময়গুলো বিক্ষিপ্তভাবে ব্যয় করতে তা এখন গুছিয়ে ব্যয় করো। এতে সময়ের অপচয় অনেকাংশে কমে যাবে।

আরো পড়তে পারো ৫টি ইউটিউব চ্যানেল যা আমাদের স্মার্ট করে তুলবে

Distraction এড়িয়ে চলো

কাজের ক্ষেত্রে মনোযোগ ধরে রাখা খুব জরুরি। সব সময় চেষ্টা করবে কাজ করার সময় তোমার মনোযোগ নষ্ট করতে পারে এমন বিষয় এড়িয়ে চলতে৷ যেমনঃ যখন কোন গুরুত্বপূর্ণ কাজ করবে তখন মোবাইল ফোন বন্ধ রাখবে বা Silent Mode এ রাখবে। এখই ভাবে যখন বাসায় থেকে কাজ করবে, চেষ্টা করো পরিবারিক জীবন আলাদা রেখে কাজ করার। কাজের সময় মনোযোগ বারবার বিগ্ন হলে কাজটি শেষ করতে সময় বেশি লেগে যায় তুলোনামুলকভাবে।

আরো পড়তে পারো জীবনে সফল হতে হলে সবার আগে যা করনীয়

অনুশীলন করো 

এই বিষয়টি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তুমি যে কাজই করো না কেন সেই কাজে  যদি দক্ষ হতে চাও বা কম সময়ের মধ্যে কাজটি সম্পন্ন করতে চাও তাহলে অনুশীলনের কোন বিকল্প নেই। ধরো, তুমি ভালো পিয়ানো বাজানো শিখতে চাও। তুমি যতবেশি বাজানো অনুশীলন করবে ততই ভালো বাজানো আয়ত্তে করতে পারবে। যেকোনো কিছুই এভাবে অর্জন করতে হয়।

যখন তুমি কম সময়ে কাজ করার দক্ষতা অর্জন করবে তখন খুব সহজেই কম সময়ে কাজটি সম্পাদন করতে পারবে এবং বাকি সময় অন্য কোনো কাজে ব্যয় করতে পারবে। এতে করে একই সময়ে একাধিক কাজ সম্পন্ন করতে পারবে যা আগে পারতে না। তাই যেকোন কাজের ক্ষেত্রেই প্রচুর অনুশীলন করো এবং তোমার দক্ষতা বাড়াতে থাকো।

আরো পড়তে পারো মোটিভেশনের অভাব?

সময়ানুবর্তিতা মেনে চলো 

চেষ্টা করবে নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজগুলো সম্পাদন করতে। আজকের কাজ আগামী দিনের জন্য ফেলে রাখবে না। এতে তোমার কাজের পরিমানই শুধু বৃদ্ধি পেতে থাকে। তাই সময় মেনে কাজ করো। যদি সম্ভব হয় নির্ধারিত দিনের পূর্বেই কাজ গুলো শেষ করে রাখো। এতে তোমার সময় সাশ্রয় হবে এবং একই সাথে তুমি নতুন কোন কাজের জন্য অতিরিক্ত সময় পাবে।

আরো পড়তে পারো ক্যারিয়ার শুরুতে ব্যর্থ ছিলেন সফল যে ৪ উদ্যোক্তা

সর্বশেষ কথা হল, তোমাকে  ধীর-স্থির মানসিকতার হতে হবে। কারন একটি কাজ একবারে না হতেই পারে এজন্য তুমি চিন্তিত বা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লে তোমার সারাদিনের অন্যান্য কাজের উপরও এর প্রভাব পড়বে। তাই মানসিক ভাবে শান্ত থাকার চেষ্টা করবে। আর উপরে বলা নিয়মগুলো একদিনেই আয়ত্তে আনতে হবে কথা নেই, চেষ্টা করে যাও। আস্তে আস্তে আয়ত্তে চলে আসবে। 

আরো পড়তে পারো
ভুল তথ্য/গুজব কিভাবে আটকাবেন?
সফলতার ৭টি সুত্র
ভার্সিটি জীবন শুরুর আগে করে ফেলো এই ৫টি কাজ
ফেইল মানেই কি সব শেষ?

 

Leave a Response

Abdullah Abu Sayeed
I am an Architecture student who loves to narrate story through lens. Loves to writes and wants to be a successful Entrepreneur.